জমিতে সেচ দিতে ৩০ বছরে ৩ কি.মি. খাল কাটলেন কৃষক

প্রকাশ: 13 September, 2020 12:32 : PM

অসম্ভবকে সম্ভব করাই মানুষের কাজ। কথাটি যতটা সহজে বলা যায় কাজটি তত সহজ নয়। তবে কিছু মানুষ রয়েছেন যারা তাদের স্বপ্নের সঙ্গে দিন যাপন করেন এবং শেষ পর্যন্ত তাতে সফল হন। তেমনই একটি উদাহরণ হলো ভারতের কৃষক লুঙ্গি ভূঁইয়া। নিজের শুষ্ক জমিতে পানি আনতে ৩০ বছর ধরে একাই তিন কিলোমিটার খাল কেটেছেন তিনি। খবর এনডিটিভির।

লুঙ্গি ভূঁইয়া জানিয়েছেন, এই খালটি গ্রামের পুকুরে পানি পৌঁছে দেয়, এটি খনন করতে তার ৩০ বছর সময় লেগেছে। এই পুরো কাজ তিনি একার হাতে করেছেন। তার বাড়ি বিহারের গয়া জেলার কোঠিলাওয়া গ্রামে।

তিনি জানিয়েছেন, গত ৩০ বছর ধরে গবাদি পশু নিয়ে তিনি জঙ্গলে যান এবং তাদের ছেড়ে খাল কাটার কাজ করেন। তার বক্তব্য, এই চেষ্টায় তাকে কেউ সাহায্য করেনি। গ্রামবাসীরা জীবিকা অর্জনের জন্য অনেকে শহরে চলে গেলেও তিনি যাননি।

কোঠিলাওয়া নামের এই গ্রামটি গয়া জেলা সদর থেকে প্রায় ৮০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। পুরো গ্রামটাই ঘন জঙ্গল এবং পাহাড়ে ঘেরা। মাওবাদীদের আশ্রয়স্থল হিসাবেও এই গ্রামকে চিহ্নিত করা হয়। এখানকার অধিকাংশ মানুষের মূল জীবিকা হল কৃষিকাজ ও পশুপালন।

বর্ষাকালে পাহাড় থেকে নেমে আসা নদীর পানি দেখেই খাল খোদাই করার কথা ভাবেন লুঙ্গি ভূঁইয়া। পাত্তি মাঞ্ঝি নামে এক স্থানীয় ব্যক্তি জানিয়েছেন, গত ৩০ বছর ধরে একা লুঙ্গি ভূঁইয়া খাল খোদাই করে চলেছেন। এরফলে বিপুল সংখ্যক মানুষের উপকার হবে, ক্ষেতগুলোতেও পানি সেচ করা সম্ভব হবে।

গয়ার এক এক শিক্ষক রাম বিলাস সিং গ্রামবাসী ও তাদের জমিকে এমন পানি এনে দেয়ার জন্য ভূঁইয়ার প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, প্রচুর মানুষ এর থেকে উপকৃত হবে। লোকেরা তার কাজের জন্য এখন তাকে জানতে পারছে।