মহাশূন্যে যেতে টম ক্রুজের বাজেট ২০ কোটি ডলার

প্রকাশ: 31 July, 2020 5:00 : PM

সম্প্রতি জুমে বৈঠক করলেন টম ক্রুজ, পরিচালক ডগ লিমন, ক্রিস্টোফার ম্যাককোয়ারি ও প্রযোজক পিজে ভন স্যান্ডউজক। সেখানে তারা মহাশূন্য কেন্দ্রিক নাম ঠিক না হওয়া সিনেমা নিয়ে আলোচনা করেন। যার বাজেট ধরা হয়েছে ২০ কোটি ডলার।

সূত্রের বরাত দিয়ে ডেডলাইন জানায়, স্পেসএক্সের এলন মাস্ক এই ছবির সহযোগী হতে যাচ্ছেন। পরিচালনা করবেন লিমন, চিত্রনাট্যও তার। তাদের সঙ্গে প্রযোজক হিসেবে আরও থাকছেন টম ক্রুজ, ম্যাককোয়ারি ও ভন স্যান্ডউজক। বৈঠকে গল্প ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।

গত মে মাসের শেষ দিকে সিনেমাটির খবর জানা যায় নাসার এক সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে। সেখানে বলা হয়, প্রথমবারের মতো মহাশূন্যে কোনো সিনেমার শুটিং হতে যাচ্ছে। তখন থেকে আলোচনায় থাকলেও প্রজেক্টটি বাস্তবায়ন নিয়ে অনেকে সন্দেহ প্রকাশ করেন।

করোনার এই সময়ে বড় বড় সিনেমার ঘোষণা দিচ্ছে নেটফ্লিক্স বা অ্যামাজনের মতো বড় স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মগুলো। তবে সে দিকে নজর নেই টম ক্রুজ ও তার দলের। ২০ কোটি ডলারের এই সিনেমার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ইউনিভার্সেল পিকচার্স। এর মাধ্যমে অনিশ্চয়তা অনেকটা কেটে গেল। তারা সিনেমা হল থেকেই বাজেটের কয়েকগুণ তুলে আনতে চান।

মহাশূন্যে ধারণকৃত এই অ্যাকশন-অ্যাডভেঞ্চারের অনেকটা অংশ জুড়ে থাকবে এলন মাস্কের স্পেসএক্স ফ্যালকন নাইন রকেট। মে মাসে ফ্লোরিডা থেকে এই মহাকাশযানে করে দুজন আমেরিকান নভোচারি কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে উড়াল দেন। যা বাণিজ্যিক মহাকাশ ফ্লাইটের জন্য একটি ঐতিহাসিক অর্জন। এ ঘটনার সাক্ষি ছিলেন টম ক্রুজ ও তার আলোচিত দুই সিনেমা ‘আমেরিকান মেড’ ও ‘এইজ অব টুমরো’র পরিচালক লিমন।

এর আগে ‘মিশন ইম্পসিবল’ সিনেমার জন্য বিপজ্জনক সব স্ট্যান্টে অংশ নেন টম ক্রুজ। সে সব কিছুকে ছাড়িয়ে যাবে নতুন ছবিটি। এই অভিযানে যাওয়ার আগে দুটি ‘মিশন ইম্পসিবল’ ছবির শুটিং শেষ করবেন টম ক্রুজ ও ক্রিস্টোফার ম্যাককোয়ারি।