যেভাবে পেসার থেকে স্পিনারে পরিণত হন যুবরাজ

প্রকাশ: 27 July, 2020 4:56 : PM

স্কেট বোর্ড ছেড়ে সাবেক ভারতীয় অলরাউন্ডার যুবরাজ সিংয়ের জাদরেল ক্রিকেটার হওয়ার গল্প অনেকেরই জানা।

কিন্তু বাঁহাতি স্পিনার হওয়ার আগে তিনি যে বাঁহাতি পেসার হতে চেয়েছিলেন তা যুবরাজ ভক্তদেরও অনেকেরই অজানা।

সম্প্রতি স্পোর্টস ক্রীড়াকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ কথাই জানিয়েছেন যুবরাজ।

একসময় যুবরাজ মানেই ছিল চার-ছক্কার বাহার। রানের চাকা দ্রুত বৃদ্ধির অস্ত্র। আর তার সেই মারকুটে ব্যাটিংয়ের কল্যাণে ২০১১ সালের বিশ্বকাপ জেতে ভারত।

শুধু ব্যাটিংই নয়, বাঁহাতি স্পিনার হিসেবেও নিজের জাত চিনিয়েছেন এ অলরাউন্ডার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১১ হাজার ৭৭৮ রান করার পাশাপাশি বল হাতেও উইকেট নিয়েছেন ১৪৮টি।

আর সেই ক্রিকেটারই কিনা ক্যারিয়ার শুরু করতে চেয়েছিলেন পেসার হিসেবে!

সে কথা জানিয়ে স্পোর্টস ক্রীড়াকে যুবরাজ বলেন, ‘আমার ১১ বছর বয়স পর্যন্ত আমি পেসারই ছিলাম। আমি তখন পালামে বিশান সিং বেদির ক্যাম্পে ছিলাম। আমি একজন ফাস্ট বোলার ছিলাম, ব্যাটিং তেমন করতামই না।’

তবে মারকুটে ব্যাটসম্যান আর স্পিনার হয়ে উঠলেন কীভাবে?

সেই স্মৃতি রোমন্থন করে যুবরাজ বলেন, একবার এক ম্যাচে ছয় নম্বরে নেমে সেঞ্চুরি করেছিলাম। সেদিন কোনো ছক্কা ছাড়াই ৯০ রান পর্যন্ত করেছিলাম। এর পর এক বাঁহাতি স্পিনার দুই ছক্কা মেরে সেঞ্চুরি করি। সেই ম্যাচের পর আমি বুঝতে পারলাম যে, আমি চাইলে ব্যাটিংও করতে পারি।

ব্যাস এভাবেই ব্যাটসম্যান হয়ে উঠেছেন বলে জানান যুবরাজ সিং।

সাবেক এই অলরাউন্ডার বলেন, আমি চিন্তা করলাম, শুধু বোলার নই, চাইলে পেস বোলিং অলরাউন্ডার হতে পারি। কিন্তু এর পরই একবার পিঠের চোট পাই। তখন দৌড়িয়ে বল করতে সমস্যা দেখা দেয়। শুরু করি স্পিন বোলিং। এর পর থেকে তাই চলতে থাকে।

প্রসঙ্গত ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ী এ তারকা অলরাউন্ডার ভারতের হয়ে ৪০২টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন। তিন ফরম্যাট মিলে ১৭ সেঞ্চুরি ও ৭১ হাফসেঞ্চুরিতে করেছেন ১১ হাজার ৭৭৮ রান। উইকেট নিয়েছেন ১৪৮টি। এমন কীর্তি গড়েও অবসরে যাওয়ার সময় ‘শেষ সম্মান’ পাননি বলে অভিযোগ যুবরাজ সিংয়ের।

তথ্যসূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস