সাহেদ-মাসুদ ১০ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশ: 16 July, 2020 11:39 : AM

করোনাভাইরাস নমুনা পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে করা মামলায় রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম ওরফে মো. সাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

একইসঙ্গে সাহেদের অন্যতম সহযোগী গ্রুপটির এমডি ও র‌্যাবের করা মামলার ২ নম্বর আসামি মাসুদ পারভেজেরও ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে। এছাড়া সাহেদের আরেক অন্যতম সহযোগী তরিকুল ইসলাম ওরফে তারেক শিবলীর সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে তাদের রিমান্ড আবেদন করা হয়। ডিবির পুলিশ পরিদর্শক গাফফারুল আলম ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। তিনি উত্তরা পশ্চিম থানায় করা প্রতারণা মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসিমের আদালতে তাদের বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কঠোর নিরাপত্তা মধ্য দিয়ে সাহেদকে ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে নেয়া হয়। এরপর তার রিমান্ড আবেদন করা হয়।

সাহেদের পাশাপাশি রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মাসুদ পারভেজকেও আদালতে তুলে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। শুনানি শেষে আদালত ১০ দিনেরেই রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গাজীপুরের কাপাসিয়া থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

একই মামলার আরেক আসামি ও সাহেদের সহযোগী তারেক শিবলীকে আবার সাত দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। পাঁচ দিন রিমান্ড শেষে আজ তাকে আদালতে তুলে ফের ১০ দিনের জন্য রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়। পরে আদালত তার সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, গতকাল বুধবার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্ত থেকে অবৈধ অস্ত্রসহ সাহেদকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। তার বিরুদ্ধে দেবহাটা থানায় অস্ত্র আইনে মামলা করা হয়।

গ্রেপ্তারের পর গতকালই তাকে ঢাকায় আনে র‌্যাব। পরে রাতে তাকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) হাজতখানায় রাখা হয়।