বিপ্লব বহ্নি রায় চৌধুরী’র কবিতা ‘অভিভাবক’

প্রকাশ: 11 June, 2020 1:15 : PM

দেখিনি তোমায়-
শুনেছি তোমার অনেক গল্প,
শুনেছি তোমার কন্ঠে একটা গান-
“বরিষ ধরা-মাঝে শান্তির বারি”।
শুনেছি-
তুমি ছিলে আত্মভিমানী- অকুতোভয়া এক নারী।
তুমি ছিলে ভয়াবহ কালো রাতের; এক জীবন্ত সাক্ষী।

তুমি ছিলে আমাদের আলো; স্বপ্ন দেখার আশা,
তুমিই ছিলে আমাদের; একমাত্র শেষ ভরসা।

তোমার ছিলো অগাধ মায়া; অনেক ভালোবাসা,
তোমার ছিলো মায়ের মমতা; মায়ের মতো আদর,
যতদিন রবে এই ধরণী; ততদিন রবে তুমি অমর।

তুমি ছিলে জীবন যুদ্ধের; মস্ত এক যোদ্ধা,
তুমি ছিলে মানব সেবায় নিবেদিত এক প্রাণ,
তুমি হচ্ছো আমাদের ভালোবাসা; শ্রদ্ধা- সন্মান।

তুমি হচ্ছো আমাদের; অহংকার- অভিমান,
শিখিয়েছো তুমি; কাকে বলে স্ব-ভিমান।

তুমি ছিলে আমাদের; হৃদয়ের স্পন্দন,
হারিয়ে তোমাকে সবাই; করছে ক্রন্দন।

তুমি হচ্ছো আমাদের অমূল্য এক সম্পদ,
তুমি যে এক অনন্য রত্নগর্ভা জননী।

তুমি হচ্ছো আমাদের গর্ব আর সুনাম,
হে জননী তোমাকে; শতকোটি প্রণাম।

অভিবাবক- হে অভিভাবক-
তোমার প্রতি রবে সদা- নত মস্তক।।