বিপ্লব বহ্নি রায় চৌধুরীর কবিতা ‘করোম্পান’

প্রকাশ: 21 May, 2020 12:03 : AM

এ যে কি শুরু হলো- কোথ্থেকে এলো?
কোথায় বা যাই- কি যে বা করি?
হায় হায় মনেহয় শুধু-
এই মরি মরি!

একদিকে-
শুধু নাম জানা; চেহারাহীন অদৃশ্য শত্রু।
যার ভয়ে, গোটা পৃথিবী ধুঁকছে,
আর মুখেমুখে বলছে,
চলো এসো;-
আমরা একসাথে লড়ে,
জয়ীঠয়ী হয়ে- হয়ে যাই সব,
শুধু নাটুকে মিত্র।
পারিনা আমরা বাইরে বেড়োতে,
থাকতে হচ্ছে ঘরের মধ্যে।
পৃথিবীটাই যে আজ- হয়ে গেছে বন্ধ,
তাইতো, কখনও সখনও মনেহয় মোর,
হয়তোবা সৃষ্টিকর্তাই হয়ে গেছে অন্ধ।

আরেকদিকে-
আসিতেছে ধাহিয়া-; এক মহা প্রলয়ের অলংকার।
যাহার রুদ্ররূপক তান্ডবী নৃত্যে ধংস করিয়া,
মানবেরে শিখাইয় দিয়া যাইতে পারে-
এইটাই আমার রুদ্ররূপ; আমার অহংকার।
মানবেরে কহিয়া যাইতে পারে,
আমি প্রকৃতি-
যাহা করিয়াছো-
করিয়াছো মোর সাথে ভুলি নাই কিছু,
আসিয়াছি শুধু শিখাইতে তোমাদের,
করো যদি আবারও-
ফিরিয়া আসিবো আমি, আবারও।
যাহা হইবে তোমাদের কাছে-
মহা প্রচন্ড ভয়ংকর।

ইহা কি শুরু হইলো, কোথা হইতে আসিলো
কোথা বা যাইয়া, কেমনে করিয়া-
হায় হায় মনেহয় শুধুই-
এই বুঝি যাই মরিয়া মরিয়া।